Goodachari (2018) – মুভি রিভিউ-১৮ সালের সেরা কন্নড়া মুভি!

Goodachari (2018) – মুভি রিভিউ-১৮ সালের সেরা কন্নড়া মুভি!

তামিল ও তেলেগু মুভি মাঝে মধ্যে দেখা হলেও এর আগে কন্নাড়া মুভি খুব একটা দেখেছি বলে ও মনে পড়ে না,ও হ্যা দেখেছিলাম।বছর খানেক আগে কাশানাম নামের কন্নড়া ইন্ডাস্ট্রির একটা ছবির সাথে পরিচয় হয়েছিলো। সেইটাই মেবি প্রথম। কাশানাম এর পর আজকেই সাউথ ইন্ডিয়ার উঠতি এই ইন্ড্রাস্ট্রির আরেকটি মুভির সাথে পরিচয় হলো,আজকে আমি সেই ছবিটার ব্যাপারে লিখছি!

Advertising

গোধাছরি (Goodachari), এর ইংরেজি অর্থ হলো স্পাই। কাজেই গোধাছরি মুভিটি স্পাই জনরার হবে এতে আর আশ্চর্যের কি।ছবিটি যখন রিলিজ পেয়েছিলো তখন বাংলাদেশের সাউথ ব্লকের ফ্যানদের মধ্যে এই মুভিটি নিয়ে বিস্তর আলোচনা সমালোচনা ঝগড়া-ঝাটির প্রবনতা দেখা গেছে। একটা কন্নডা মুভি নিয়ে যখন এত্ত হাইপ উঠে তখন দেখতেই হয় এই ছবিতে আসলে কি আছে যা আমজনতার আগ্রহের বিষয় হয়ে গেল।
এই কৌতুহল মেটানোর জন্যেই ২ ঘন্টা ২২ মিনিট খরচ করতেই হল আর কি।

ছবি কাহিনি অর্জুনকে ঘিরে, যার বাবা ছিল ইন্ডিয়ান সিক্রেট সার্ভিস ত্রিনেত্রর একজন অফিসার,যিনি দায়িত্ব পালনের সময় একটি জঙ্গি সংঘটনের হাতে খুন হন।অর্জুনও চায় তার বাবার মতই দেশের সেবা করতে।এইজন্যে সে ইন্ডিয়ার কোন সিক্রেট সার্ভিসেই এপ্লাই করতে বাদ রাখে নি। ১৭৪ বার এপ্লাই করে ১৭৫ তম বারে তার বাবার প্রতিষ্ঠান ‘ত্রিনেত্র’ তেই কপাল খুলল।যেদিন সে জয়েন করে সেদিনই সিক্রেট সার্ভিসে চোরাগোপ্তা হামলা হয়।মারা যায় সিক্রেট সার্ভিসের সবচেয়ে বড় মাথা সহ ১৫ জন এজেন্ট।
আর এমন ভাবে মারা হয়, সব সন্দেহ অর্জুনের দিকে এসে পড়ে।তাকে হন্যে হয়ে খুজতে থাকে সবাই……
পালাতে পালাতে  অর্জুন ভাবতে থাকে কে হতে পারে সেই বিশ্বাসঘাতক……
না আর বলব না,স্পয়লার হয়ে যাবে!

ছবিটির কিছু আইডিয়া হলিউডের কিংসম্যান দ্য সিক্রেট সার্ভিস মুভি থেকে কপি মারা হয়েছে। তাই একে আমি পুরোপুরো মৌলিক কাহিনির ছবি বলবো না। তবে ছবিটি খুবই এঞ্জয়েবল।টানটান উত্তেজনা,আর একের পর এক টুইস্টে ভরপুর ছিল।
পুরোটা সময় আপনাকে থ্রিলিং এঁর অনুভুতি দিবে। তাই  দেখে সময়টা লস হবে না মোটেও।

শুরুর দিকেই বলেছিলাম এই মুভি নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি নানারকম সমালোচনা ও চলতেসে। এর কারন ও আছে।
মুভিতে আমাদের বাংলাদেশের নাম ও অনেকবার আসে।স্পেশালী চট্টগ্রাম। জঙ্গি সংগঠন আল-মুজাহিদিন এঁর ঘাটি হিসেবে চট্টগ্রামকে দেখানো হয়েছে।
একটা দৃশ্যে পাকিস্থান আর বাংলাদেশের মাত্রচিত্র এক করে দেখানো হয়েছে,এই ব্যাপার আমার কাছে খুবই জঘন্য লেগেছে।এইভাবে বাংলদেশকে না দেখালেও কোন ক্ষতি ছিল না।বাট তবুও তারা দেখিয়েছে।

তো এই ব্যাপারটা আপনি কীভাবে নিবেন সেইটা আপনার ব্যাপার,তবে এই মুভিটিকে নিয়ে অনেক কথাবার্তা হচ্ছে হবেও,তবে মুভিটি ব্যবসা সফল হওয়াতে,দুনিয়ার সবচেয়ে বড় নকলবাজ ইন্ড্রাস্ট্রি বলিউড শিঘঘিরই এঁর রিমেক করে ফেলবে মনে হচ্ছে। সেখানে এইসব ব্যাপার গুলি দেখালে বিতর্কের আগুনে ঘি ঢেলে দেওয়ার মত ব্যাপার হবে কোন সন্দেহ নেই।

ছবির ক্যারেক্টার গুলির অভিনয় ভাল ছিল।তবে ডিরেকশনে ভাল রকমের লেকিংস আছে মনে হয়েছে।বলিউড যদি এটার রিমেক করে ফেলে তখন হয়তো আমরা আরো ভাল নির্মান দেখতে পাবো।ওভারঅল এই মুভিটা এই বছরের সাউথ ইন্ডিয়ার সেরা মুভি গুলোর মধ্যে উপরের দিকেই থাকবে।

এই ছবিটির হিন্দি ডাব আছে কিনা জানি না।আমি কাউকে হিন্দি ডাব দিয়ে ছবি দেখতে উতসাহিত করার পক্ষেই না। তবে স্পেশাল থিংস ইজ দ্যাট সিরিয়াল কিলার এঁর বাংলা সাবটাইটেল বানিয়েছে। যারা বাংলা সাব এর ফ্যান,তারা তো ভাল করেই জানেন সিরিয়াল কিলারের সাবটাইটেলের কোয়ালিটি!

তো আর দেরি কেন, ঝটপট হাতে সময় নিয়ে বসে যান ২০১৮ সালের কন্নড়া ফিল্ম ইন্ড্রাস্ট্রির অন্যতম সেরা থ্রিলার উপভোগ করার জন্যে!

চিল!

May 15, 2019 - Posted by Shujon - No Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *